কাম মেঘালয় ঠিক কিসে বিশ্বাস করে?

খাসি আর গারো সমেত অনেক ভাষাতেই KAM (কাম) কথাটার মানে হলো “কাজ”। একটা বাসযোগ্য সমাজ হলো সেটাই যেখানে কাজ এবং যাঁরা কাজ করেন সেই শ্রমজীবী জনতাকে সম্মান করা হয়। KAM অন্য শব্দের আদ্যক্ষর নিয়ে গঠিত কোনো সংক্ষিপ্ত শব্দ নয়।

কথাপ্রসঙ্গ

গণতন্ত্র পুনর্নবীকরণের জন্য একটা রাজনৈতিক মঞ্চ হয়ে উঠতে চায় KAM। একটা যথাযথ এবং সকলকে নিয়ে চলতে সক্ষম মেঘালয় রাজ্যের জন্য বিভিন্ন আন্দোলন ও গণ-প্রচারাভিযান থেকে KAM-এর জন্ম। শ্রমিকদের অধিকার থেকে শুরু করে লিঙ্গের জন্য ন্যায়বিচার, জমির অধিকার আর পরিবেশগত ন্যায়বিচার, স্বেচ্ছাচার আর মৌলবাদকে চ্যালেঞ্জ করা, এবং ব্যক্তিগত অধিকার ও অন্যান্য বিবিধ স্বাধীনতাকে রক্ষা করার কাজ পর্যন্ত বিভিন্ন ক্ষেত্রে জনগণের লড়াইতে আমাদের অভিজ্ঞতা দ্বারা প্রজ্বলিত হয়েছে এই KAM।

যাঁরা ভারত-এর স্বাধীনতার জন্য এবং মেঘালয় রাজ্য গঠনের জন্য লড়াই করেছেন, তাঁদের সকলের অবদানকেই KAM স্বীকার করে। বিগত পঞ্চাশ বছর ধরে যাঁরা মেঘালয় রাজ্য গঠনের কাজে অবদান রেখেছেন মেঘালয়-এর সেই সমস্ত বাসিন্দার অবদানকেই আমরা স্বীকার করি। তাঁদের মধ্যে আছেন শ্রমিক, শিক্ষক, কৃষক, পেশাদার কর্মী, স্বাস্থ্যকর্মী, পড়ুয়া, সাংবাদিক, শিল্পী, ক্রীড়াবিদ, ব্যবসায়ী, গৃহিণী এবং অন্যান্য অনেকেই।

যদিও তার পাশাপাশি আমাদের এটাও স্বীকার করতে হবে যে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কর্মসংস্থান, পরিবেশ, জনগণকে দারিদ্রতার মুখে ঠেলে দেওয়া, এবং জঙ্গল, কৃষিজমি আর ঘরবাড়ি থেকে তাঁদের দূরে সরিয়ে দেওয়া ইত্যাদি সমস্ত ক্ষেত্রেই মেঘালয় দ্রুতবেগে দেশের সবথেকে দরিদ্র ও সবথেকে খারাপভাবে শাসিত রাজ্যগুলোর মধ্যে একটায় পরিণত হচ্ছে। আমরা জানি যে মেঘালয়-এর গ্রামীণ জনগণের ৭৬% ভূমিহীনতার কষ্ট সহ্য করে চলেছেন। এছাড়াও, এই ৫০ বছরে আমরা দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, সমস্ত রকমের বেআইনি কার্যকলাপ, বর্ধিত অর্থনৈতিক অসাম্য, এবং শ্রমের শোষণেরও সাক্ষী থেকেছি।

মেঘালয়-এর জনগণের কাছে KAM আর্জি জানাচ্ছে যে তাঁরা যেন এই প্রবণতাগুলোকে আর প্রশ্রয় না দেন। আমাদের আগে অনেকেই একটা স্বচ্ছ এবং দায়িত্বশীল স্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষে লড়াই করেছেন এবং আত্মত্যাগ দিয়েছেন। আমাদের যৌথ এবং সক্রিয় রাজনৈতিক অংশগ্রহণের মাধ্যমে আমরা মেঘালয়-কে একটা যথাযথ এবং ন্যায্য সমাজে পরিণত করতে পারব।

মতাদর্শ এবং নীতি

KAM বিশ্বাস করে যে ন্যায়, সাম্য, এবং পারস্পরিক শ্রদ্ধা একটা যথাযথ ও শক্তিশালী মেঘালয় রাজ্য গড়ে তুলবে।

KAM অংশগ্রহণমূলক গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে, যেখানে রাজ্যের প্রত্যেক নাগরিক যাঁরা পরিশ্রম করেন তাঁদের সকলেরই মেঘালয়-এর শাসনকাজ এবং রাজনীতিতে একটা ভূমিকা ও একটা অংশীদারিত্ব আছে। রাজ্যের শাসন এবং রাজনীতি শুধুমাত্র সেই মুষ্টিমেয় কয়েকজনের জন্য হওয়া উচিত নয় যাঁরা ক্ষমতা, সম্পত্তি এবং বিশেষ সুবিধা ভোগ করেন, বরং সেই সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের জন্য হওয়া উচিত যাঁরা পরিশ্রম এবং সংগ্রাম করেন, বিশেষ করে দুর্বল এবং প্রান্তিক জনগণের জন্য।

KAM বিশ্বাস করে যে অনেক পথের মধ্যে নির্বাচনী রাজনীতি হলো একটা পথ যার মাধ্যমে জনগণ এই রাজ্যের ভবিষ্যত গড়ে তোলার কাজে হস্তক্ষেপ করতে পারে।

KAM সকল নাগরিকদের আহ্বান জানায় যাতে তাঁরা সামনে এগিয়ে আসেন এবং মেঘালয় রাজ্যটাকে একটা নতুন প্রগতিশীল সমাজ হিসাবে পুনর্নিমাণ করেন।

যে লক্ষ্যগুলো পূরণের উদ্দেশ্যে KAM কাজ করবে

স্বচ্ছ শাসন ও রাজনীতি

  • একটা স্বচ্ছ শাসনের পরিবেশ নিয়ে আসা যেটা গ্রাম থেকে শুরু করে বিধানসভা পর্যন্ত শাসনকাজের সমস্ত স্তরে অংশগ্রহণের জন্য সকল নাগরিকদের সুযোগ দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করবে।
  • বর্তমান শাসন যার বৈশিষ্ট্যই হলো ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি, এবং পুঁজিবাদের সাথে অন্তরঙ্গ বন্ধুত্ব, সেই শাসনের অবসান ঘটানো।
  • আমাদের ইতিহাস আর ঐতিহ্যের উপর ভিত্তি করে এবং সেগুলোকে প্রগতিশীল মতাদর্শের আলোকে পরিশুদ্ধ করে নেওয়ার মাধ্যমে এটা অর্জিত হবে। একটা সমতাবাদী এবং প্রগতিশীল সমাজ গড়ে তোলার পথে ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতিকে বাধা হিসাবে ভাবা উচিত নয়। পরিবর্তে ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে চলতে গেলে আমাদের অতীতের সাথে আমাদের একটা সমালোচনামূলক সম্পর্ক বজায় রাখা উচিত।
  • এমন একটা শাসন নিয়ে আসা যেখানে সকলে সমান, সকলের অধিকার আছে, সকলে মিলে কাজ করে এবং সকলের অনুভূতি প্রকাশ ও নিজ নিজ বিশ্বাসের স্বাধীনতা আছে।

দুর্নীতি এবং রাজনীতির অপরাধীকরণকে পরাজিত করা

  • সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আমরা দুর্নীতি, ক্ষমতা আর বিশেষ সুবিধার অপব্যবহার, বৈষম্য, শোষণ, নারী ও শিশুদের বিরুদ্ধে হিংসা, এবং ক্ষমতাসীনদের দ্বারা অপরাধমূলক উপাদানগুলোকে সুরক্ষা প্রদান করার বাড়বাড়ন্ত দেখেছি। এই প্রবণতা আমাদের রাজ্য এবং আমাদের সমাজকে প্রতি মুহুর্তে ভয় দেখিয়ে চলেছে, এবং এগুলোকে আমাদের সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করা উচিত।

জমি, পরিবেশ এবং কৃষকদের সুরক্ষিত রাখা

  • জমি-সংক্রান্ত আইনগুলোকে এমনভাবে শক্তিশালী করা যাতে সেগুলো সমাজের দুর্বল অংশের বাস্তুচ্যুত হওয়া এবং তাঁদের জমি থেকে দূরে সরিয়ে রাখার বিরুদ্ধে সুরক্ষা প্রদান করতে পারে।
  • জমি, জঙ্গল, নদী, মাঠ, এবং সাধারণের সম্পত্তিকে সম্প্রদায়ের উপকারের স্বার্থে রক্ষা করা উচিত, যাতে আগামী প্রজন্মের জন্য সেগুলোর অস্তিত্ব টিকে থাকে।
  • ভূমি-সংস্কারের বিষয়ে তর্ক ও আলোচনা করা, এবং রাজ্যের আদিবাসী জনগণের অধিকার রক্ষা করার জন্য জমির সর্বোচ্চসীমা আইন-এর [ল্যান্ড সিলিং অ্যাক্ট] মতো আইন তৈরি করা।
  • আমাদের প্রাকৃতিক সম্পদ, যেমন – জমি, জঙ্গল এবং নদীর সংরক্ষণের সুবিধার জন্য পরিবেশগত নিয়মকানুন আর রীতিনীতি বিবর্ধিত ও শক্তিশালী করা, যাতে সেই সম্পদ শুধুমাত্র অভিজাতদের উপকারে সীমিত না থেকে সকল নাগরিকের উপকারে লাগে।
  • কৃষিব্যবস্থাকে শক্তিশালী করা এবং কৃষকদের অধিকার ও স্বার্থকে সুরক্ষিত রাখার জন্য লড়াই করা।
  • শোষণ আর ঋণের বাঁধন থেকে কৃষকদের মুক্ত করতে এবং তাঁদের মালিকানার অধিকার প্রদান করতে আইন ও নীতি প্রণয়ন করা।

গণতান্ত্রিক অর্থনীতি

  • KAM পর্যাপ্ততার অর্থনীতিতে বিশ্বাস করে, লোভের অর্থনীতিতে নয়।
  • অর্থনৈতিক নীতিগুলি প্রত্যেক নাগরিকের সমৃদ্ধি, আশা এবং সুখের দিকে পরিচালিত হওয়া উচিত।
  • অর্থনৈতিক নীতিগুলি মানুষের কল্যাণের জন্য প্রণয়ন এবং বিবেচনা করতে হবে, লাভের জন্য নয়।
  • সেইসমস্ত নীতি যা শুধুমাত্র অভিজাতদের উপকার করে এবং তাঁদের স্বার্থকে রক্ষা করে, যা সংখ্যাগরিষ্ঠ নাগরিক এবং পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর, সেগুলোকে বন্ধ করা।
  • দুর্বল, দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগণের জন্য নীতি ও আইন প্রণয়ন করা।
  • এমন একটা অর্থনীতিকে শক্তিশালী করে তোলা যা উদ্যোক্তাদের মনোভাবকে উৎসাহিত করবে, যা পৃষ্ঠপোষকতার জাল আর দুর্নীতির দ্বারা বাধাগ্রস্ত হবে না।
  • এমন একটা অর্থনীতির জন্য প্রচেষ্টা করা যা সকলের জন্য একটা সমতাপূর্ণ ময়দান নিশ্চিত করবে এবং মুষ্টিমেয় কয়েকজনের হাতে অর্থনৈতিক ক্ষমতার কেন্দ্রীভবনকে নিয়ন্ত্রণ করবে।
  • এমন সমস্ত অর্থনৈতিক নীতি প্রণয়ন করতে হবে যেগুলোর মূল নিহিত থাকবে কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং সুস্থায়ী উন্নয়নের মধ্যে।

স্বাস্থ্য পরিষেবা নিশ্চিত করা

  • স্বাস্থ্য এবং স্বাস্থ্য পরিষেবাকে অধিগত করার ক্ষমতা প্রতিটি নাগরিকের মৌলিক অধিকার হওয়া উচিত।
  • গুণমানসম্পন্ন স্বাস্থ পরিষেবাকে অধিগত করার ক্ষমতা শুধুমাত্র তাঁদের জন্য সীমিত থাকা উচিত নয় যাঁদের সেই উপায় আছে, বরং সকলের জন্যই সেই ক্ষমতা থাকা উচিত।
  • KAM-এর লক্ষ্য স্বাস্থ্য পরিষেবাকে রাজ্যের সমস্ত প্রান্তে সমস্ত নাগরিকের কাছে সাশ্রয়ী মূল্যে পৌঁছে দেওয়া।
  • জিনিসের অপব্যবহার, মানসিক স্বাস্থ্য এবং বয়স্কদের যত্ন নেওয়া ইত্যাদি জনস্বাস্থ্যের বিষয়গুলোকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য স্বাস্থ্য-সংক্রান্ত চিন্তাভাবনাকে সম্প্রসারিত করা।
  • বেসরকারী স্বাস্থ্য ক্ষেত্রের অন্যায়ভাবে জোর করে মুনাফা অর্জনের উদ্দেশ্যটাকে নিয়ন্ত্রণ করা।

গুণমানসম্পন্ন এবং সুলভ শিক্ষা নিশ্চিত করা

  • শিক্ষা হলো সকল নাগরিকের অধিকার।
  • সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতে বিতর্ক ও ভিন্নমতের জায়গা থাকে, শিক্ষার্থীদের কাছে নিজেদের সম্ভাবনা তুলে ধরার সুযোগ থাকে ইত্যাদি নিশ্চিত করে নীতি ও আইন প্রণয়ন করবে KAM।
  • বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শোষণমূলক ও মুনাফালোভী চরিত্রকে সীমাবদ্ধ করতে পারবে এমন নীতি ও আইন প্রণয়ন করা।
  • শিক্ষার শিকড় নিহিত থাকতে হবে যৌক্তিকতা এবং বিজ্ঞানের সুরে বাঁধা স্থানীয় ইতিহাস ও স্থানীয় জ্ঞানের মূলে

বিকেন্দ্রীকৃত, আর্থিক মদতপুষ্ট, কৈফিয়ত দিতে বাধ্য স্থানীয় নগর শাসন

  • বিশুদ্ধ পানীয় জল, রাস্তা, বিদ্যুত, অবসর স্থান এবং একটা বাস্তুতান্ত্রিকভাবে সুস্থায়ী বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ব্যবস্থার মতো সুলভ ও সুস্থায়ী নাগরিক সুবিধা সমেত জনগণ-কেন্দ্রিক শহর আর গ্রাম তৈরির লক্ষ্যে KAM কাজ করবে।
  • নাগরিক সুবিধাগুলো জনগণের চাহিদার প্রতি সংবেদনশীল হওয়া উচিত।

তরুণ প্রজন্মকে সমর্থন করা

  • তরুণদের প্রাতিষ্ঠানিক সহায়তার সুযোগ এবং সেগুলো অধিগত করার ব্যবস্থা করে দেওয়া যা তাদের আশা এবং আকাঙ্খা পূরণ করে।
  • জলবায়ুর পরিবর্তন এবং প্রযুক্তি যেসমস্ত চ্যালেঞ্জ সামনে নিয়ে এসেছে সেগুলোর সম্মুখীন হওয়ার জন্য তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত করা।
  • খেলাধুলা, সঙ্গীত এবং শিল্পকলার সাথে দীর্ঘমেয়াদী সম্পৃক্ততাকে উৎসাহিত ও সমর্থন করে এমন নীতি প্রণয়ন করা।

দুর্নীতি মুক্ত চাকরি

  • কাজ এমন হওয়া উচিত যেন তা জীবনে নিশ্চয়তা নিয়ে আসে, এবং ব্যক্তি ও পরিবারের শারীরিক, মানসিক ও আনুভূতিক সুস্থতা নিশ্চিত করে।
  • চাকরির খোঁজ ও নিয়োগ যাতে পদ্ধতিগত দুর্নীতি এবং স্বজনপোষণ দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেটা নিশ্চিত করবে KAM।
  • চুক্তিগুলো উন্মুক্ত আর স্বচ্ছ হওয়া উচিত এবং স্থানীয় দক্ষতা ও প্রয়োজনীয়তার কথা ভেবে পরিচালিত হওয়া উচিত।

শ্রমিকদের অধিকার রক্ষা করা

  • শ্রমিকদের শ্রমের মর্যাদা এবং এই রাজ্যের প্রতি তাঁদের অবদানের কথা মনে রেখে তাঁদের অধিকার ও সম্মানের জন্য লড়াই করা।
  • শ্রমিকদের অধিকার রক্ষা করবে এবং তাঁদের বিকাশের সুযোগ তৈরি করে দেবে এমন আইন ও নীতির মাধ্যমে এগুলো অর্জন কর

লিঙ্গ সমতা এবং নারী ও যৌন সংখ্যালঘুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা

  • KAM জীবনের সর্বক্ষেত্রে লিঙ্গ সমতায় বিশ্বাস করে এবং লিঙ্গভিত্তিক বৈষম্য ও হিংসা নিবারণের লক্ষ্যে কাজ করবে।

সকল নাগরিকের শান্তি, নিরাপত্তা এবং সুরক্ষা

  • KAM বিশ্বাস করে যে শান্তি আর আইনের শাসন হলো মেঘালয়-এর সকল নাগরিকের প্রাপ্য। সকল সুবিধাবঞ্চিত এবং সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর অধিকার ও সুরক্ষার জন্য লড়াই করবে KAM।

ধর্মীয় মৌলবাদের বিরোধিতা করা

  • KAM সকল ধর্ম এবং বিশ্বাসকেই সম্মান করে।
  • KAM সাম্প্রদায়িক ও মৌলবাদী শক্তিগুলোর বিরোধিতা করে এবং তাই বিদ্বেষের বিভাজনকারী শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রীয় এবং বহুত্ববাদী ভারত

  • KAM সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যে বিশ্বাস করে এবং একটি একক পরিচয় আরোপ করার প্রবণতাকে সর্বদা চ্যালেঞ্জ করবে।
  • KAM বিশ্বাস করে যে ভারত হলো একটা যুক্তরাজ্য, যেখানে রাজ্য এবং কেন্দ্র সরকারের মধ্যে ক্ষমতা সমানভাবে ভাগ করা দরকার।
  • সহযোগিতামূলক যুক্তরাষ্ট্রবাদ এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক আঞ্চলিকতাবাদের একটি দল হবে KAM, যেখানে সর্বাগ্রে থাকবে মেঘালয়-এর জনগণের স্বার্থ, এবং কেন্দ্রীয় সরকার বা সংখ্যাগরিষ্ঠ শক্তির নির্দেশের কাছে এই দল নিজের মাথা নত করবে না।
  • KAM আরও বিশ্বাস করে যে সংবিধানের ষষ্ঠ তফসিলের কাঠামোর অধীনে সকলকে নিয়ে চলতে সক্ষম তৃণমূল স্তরের প্রতিষ্ঠানগুলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং রাজ্যের কার্য-কাঠামোতে স্বচ্ছতা ও দায়িত্ব নিশ্চিত করে সেই প্রতিষ্ঠানগুলোকে গণতান্ত্রিকভাবে কাঠামোবদ্ধ, সংগঠিত এবং শক্তিশালী হতে হবে।

ভিন্নমত এবং বিতর্ককে উৎসাহিত করা

  • বিতর্ক, ভিন্নমত এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতার মূলে নিহিত থাকা গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে এবং সবার কথা শোনা যায় এমন একটা সত্যিকারের গণতান্ত্রিক সমাজে বিশ্বাস করে KAM


সামনের পথ

এতক্ষণ যেগুলো বলা হলো সেগুলো এমন একটা দলের দ্বারাই অর্জন করা সম্ভব যার শিকড় রয়েছে গণ-আন্দোলনের গভীরে এবং যে দল আইন-প্রণয়নকারী ক্ষমতাকে নিজের অস্তিত্বের সমাপ্তি হিসাবে বিবেচনা করে না। নৈতিক রাজনৈতিক কাজকর্মের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ মানুষের জন্য একটি মঞ্চ গঠনের মাধ্যমে এগুলো অর্জন করা যেতে পারে।

রাজনীতি হলো ব্যবসায়িক স্বার্থ বা বংশ ক্ষমতা বা পৃষ্ঠপোষকতার সম্প্রসারিত রূপ – এমন একটা ধারণাকে প্রত্যাখ্যান করে KAM। রাজনীতিকে ‘নোংরা’ বলে মনে করা হয়, কিন্তু যাঁরা পরিশ্রম করেন এবং যাঁরা ন্যায় ও অধিকারে বিশ্বাস করেন, তাঁদের এই পচন পরিষ্কার করতে এগিয়ে আসা উচিত। এখনই যদি আমরা এটা ঠিক করতে না পারি তাহলে আমরা একটা বিপর্যয়ের দিকে এগিয়ে যাব।

KAM বিশ্বাস করে যে নির্বাচনী রাজনীতি ধনী, অপরাধী এবং তাদের বন্ধুদের খেলার মাঠ নয়, বরং একটা ক্ষেত্র যেখানে প্রত্যেকে নিজেদের পছন্দমতো ভবিষ্যত তৈরি করার কাজে অংশগ্রহণ করতে পারে। প্রকৃত অর্থে গণতান্ত্রিক রাজনীতি শুধুমাত্র একটা বুদ্ধিবৃত্তিক কার্যকলাপ নয়, এবং স্বতন্ত্র নেতাদের উপর তার দৃষ্টি নিবদ্ধ থাকতে পারে না। শ্রমজীবী জনগণের পূর্ণ ও সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমেই কেবলমাত্র রূপান্তরকারী রাজনীতির অস্তিত্ব টিকে থাকতে পারে।

বিভিন্ন পরিবেশ এবং অভিজ্ঞতা থেকে আমরা KAM-এ এসেছি। হতে পারি আমরা কেউ শ্রমিক, কেউ কৃষক, কেউ দিনমজুর, কেউ ছাত্র, কেউ স্বনির্ভর তরুণ বা তরুণী, কেউ গৃহিণী, কেউ শিক্ষক, কেউ শিল্পী, কেউ সঙ্গীতজ্ঞ, কেউ অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকুরিজীবী, কেউ বুদ্ধিজীবী এবং কেউ সমাজকর্মী। কিন্তু ক্ষমতার চোখে চোখ রেখে সত্যি কথা বলে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য যে আবেগ প্রয়োজন সেটা আমাদের সকলের মধ্যেই আছে।

KAM-এর অংশ হিসাবে আমরা বিশ্বাস করি যে সত্যিকারের পরিবর্তন নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে নয় বরং এমন মানুষদের একত্রিত হওয়ার মাধ্যমে আসবে যাঁরা নিজেদের দৈনন্দিন জীবনে গণতান্ত্রিক নাগরিকত্বের মূল্যবোধ আবিষ্কার করতে চান। আপনি যদি মেঘালয়-এর একজন নাগরিক হন যিনি রাজ্যের বর্তমান আর্থ-সামাজিক-রাজনৈতিক অবস্থায় ক্ষুব্ধ এবং হতাশ তাহলে KAM হলো

সেই গোষ্ঠী যেখানে আপনার যোগদান করা উচিত।

আমরা আপনাকে এই প্রচেষ্টায় যোগদান করতে, এর অংশ হতে আমন্ত্রণ জানাই।

এমনকি আপনি এই লেখাটা সম্বন্ধে আপনার মন্তব্য, সমালোচনা এবং

মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে শুরু করতে পারেন এবং আমাদের সাথে স্বে

চ্ছাসেবক/সদস্য হিসেবে যোগ দিতে পারেন

We need your suggestions and support. Please send us a message

Our Phone Number

+९1 ६००९७५४६२६

WhatsApp

WhatsApp us

Email

kammeghalaya@gmail.com

Our Address

Hari Sabha, Laban, Shillong 793004

Social Media

Scroll to Top